মোদির চিঠি পেয়ে আপ্লূত রায়না

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ছবি:টুইটার

অবসর নেওয়ার পর মহেন্দ্র সিং ধোনিকে আবেগে আপ্লুত হয়ে একটা চিঠি লিখেছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গত ১৫ আগস্ট ধোনির অবসরের কিছুক্ষণের মধ্যেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিদায় নিয়েছেন সুরেশ রায়নাও। তাঁকেও বঞ্চিত করেননি মোদি, রায়নাকেও একটা আবেগমাখা চিঠি দিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী।


রায়নাকে লেখা এই চিঠিতে অবশ্য অবসর শব্দ ব্যবহার করেননি ভারতের প্রধানমন্ত্রী। তিনি দুই পৃষ্ঠার এই চিঠিতে লিখেছেন, ‘আমি অবসর শব্দটা এখানে ব্যবহার করতে চাই না। কারণ অবসর ঘোষণার জন্য তুমি একটু বেশিই তরুণ ও তেজদীপ্ত।’


রায়নার প্রশংসা করে নরেন্দ্র মোদি চিঠির আরেক অংশে লিখেছেন, ‘তোমাকে শুধু একজন ভালো ব্যাটসম্যান হিসেবে নয়, এই প্রজন্ম মনে রাখবে একজন কার্যকর বোলার হিসেবেও। পরিস্থিতির প্রয়োজনে তোমাকে অধিনায়ক সহজেই ব্যবহার করতে পারত। আর ফিল্ডিংয়ে যত রান বাঁচিয়েছ সেটা গুনতে গেলে কয়েক দিন লাগবে।’


রায়নার খেলা সরাসরি মাঠে বসে দেখেছেন নরেন্দ্র মোদি। ২০১১ সালের বিশ্বকাপ কোয়ার্টার ফাইনাল দেখেছিলেন আহমেদাবাদে। মোতেরা স্টেডিয়ামে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সেদিন দুর্দান্ত খেলেছিলেন রায়না। সেই স্মৃতি উল্লেখ করে মোদি বলেন, ‘আমি মোতেরা স্টেডিয়ামে বসে তোমার খেলা সরাসরি দেখেছি। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সেই ম্যাচে তোমার এক প্রান্ত ধরে রাখা ইনিংসটি (৩৪ রানে অপরাজিত) ভারতকে জিততে সাহায্য করেছিল।’


১৮টি টেস্ট খেলেছেন রায়না। এই ১৮ ম্যাচে ১টি সেঞ্চুরি ও ৭টি হাফ সেঞ্চুরি আছে। ওয়ানডেতে ২২৬ ম্যাচে রায়নার রানসংখ্যা ৫৬১৫। আছে ৫টি সেঞ্চুরি ও ৩৬টি হাফ সেঞ্চুরি। ভারতীয় দলে রায়নার এত সব অর্জনে মুগ্ধ মোদি লিখেছেন, ‘ব্যক্তিগত গৌরবের জন্য তুমি খেলনি। তুমি খেলেছ দল ও দেশের গৌরবের জন্য।’


মোদির চিঠি পেয়ে আপ্লুত রায়নাও। নিজের টুইটারে লিখেছেন, ‘যখন খেলি, আমরা দেশের জন্য রক্ত ও ঘাম ঝরিয়ে খেলি। দেশের মানুষের প্রশংসা আর ভালোবাসা পাওয়ার চেয়ে বড় প্রাপ্তি আর কিছুতে নেই। আর যখন দেশের প্রধানমন্ত্রী প্রশংসা করেন সেটা তো আরও বেশি ভালো লাগে। আপনার প্রশংসা ও শুভকামনার জন্য ধন্যবাদ নরেন্দ্র মোদিজি। আমি কৃতজ্ঞতার সঙ্গে এটা গ্রহণ করছি। জয় হিন্দ।’


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published.