সিটির দূরন্ত জয় দিয়ে শুরু

  • 4
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    4
    Shares

গত রাতে উলভসের মাঠেই খেলতে গিয়েছিল সিটি। যে মাঠে গত মৌসুমে হেরেছিল ৩-২ গোলে। ফলে পরীক্ষাটা ভালোই কঠিন ছিল ডি ব্রুইনিয়া-জেসুসদের জন্য। শেষমেশ এই দুই তারকার সঙ্গে ইংলিশ মিডফিল্ডার ফিল ফোডেনের এক গোল মিলিয়ে বেশ হেসেখেলেই জিতেছে তাঁরা। উলভসের হয়ে গোলটা মেক্সিকান স্ট্রাইকার রাউল হিমেনেজের।

ছবি:সংগৃহীত

গত মৌসুমে লিগে উলভারহ্যাম্পটনের বিপক্ষে দুবারই হেরে বসেছিল ম্যানচেস্টার সিটি। মৌসুম শেষে লিভারপুলের কাছে যে তাদের শিরোপা হারাতে হলো, তার পেছনে ওই দুই হারের বেশ বড় ভূমিকা ছিল। নতুন মৌসুমের প্রথম ম্যাচে সেই দুঃস্বপ্নকে মাটিচাপা দিল পেপ গার্দিওলার দল।

৩-১ গোলে উলভসদের হারিয়েছে তাঁরা।

প্রথম থেকে ম্যাচে আধিপত্য ছিল সিটির। মূল একাদশে এই মৌসুমেই নতুন আসা ডাচ ডিফেন্ডার নাথান আকে ছিলেন। তবে আরেক নতুন অতিথি ফেরান তোরেস ছিলেন বেঞ্চে। ম্যাচের দশ মিনিটে বেলজিয়ান মিডফিল্ডার ও গত মৌসুমে প্রিমিয়ার লিগের সেরা খেলোয়াড় কেভিন ডি ব্রুইনিয়ার একটি দুর্দান্ত ফ্রি-কিক শেষ মুহূর্তে ঠেকিয়ে দেন উলভসের পর্তুগিজ গোলরক্ষক রুই পাত্রিসিও।

তবে উনিশ মিনিটে আর রক্ষা পায়নি দলটা। মরোক্কান ডিফেন্ডার রোমাইন সাইস ডি-বক্সের এক কোনায় ডে ব্রুইনিয়াকে ফেলে দিলে পেনাল্টি পায় সিটি। সেখান থেকে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন এই তারকা।

৩২ মিনিটে আক্রমণভাগের দুর্দান্ত রসায়নে ব্যবধান দ্বিগুণ করে সিটি। ডি ব্রুইনিয়া ডি-বক্সে বল বাড়ান ইংলিশ উইঙ্গার রহিম স্টার্লিংয়ের দিকে। তার পাস পেয়ে বাঁ পায়ের শটে ফাঁকা জালে বল পাঠান ফোডেন।

অবশেষে ৭৮ মিনিটে পদেন্সের বাঁকানো ক্রসে মাথা ঠেকিয়ে ব্যবধান কমান হিমেনেজ। তবে ম্যাচে উলভসের ফিরে আসার আশা পুরোপুরি শেষ করে দেন গ্যাব্রিয়েল জেসুস। তার শট প্রতিপক্ষ অধিনায়ক ইংলিশ ডিফেন্ডার কনর কোডির পায়ে লেগে কিছুটা দিক পাল্টে জালে জড়ায়। নিজেদের প্রথম ম্যাচ জিতে ৩ পয়েন্ট নিয়ে সাত নম্বরে আছে সিটি। সমান পয়েন্ট নিয়ে দ্বাদশ স্থানে আছে উলভস।

ছবি:সংগৃহীত

বিরতির পর দেখা মিলে সব লড়াই।বিরতির পর নিজেদের শক্তি দেখাতে শুরু করে উলভসও। রাইট উইং থেকে সাবেক বার্সা উইঙ্গার আদামা ত্রায়োরে’র কাছ থেকে বল নিয়ে ইংলিশ ডিফেন্ডার জন স্টোনসকে ফাঁকি দিয়ে বাঁ পায়ের দুর্দান্ত এক শট গোলমুখে মারেন পর্তুগিজ উইঙ্গার দানি পদেন্সে। একটুর জন্য গোল হয়নি।

এর একটু পরে আরেক পর্তুগিজ উইঙ্গার পেদ্রো নেতোর পাস থেকে গোল করার সুযোগ পান পর্তুগিজ মিডফিল্ডার রুবেন নেভেস। গোল মুখ থেকে ক্লিয়ার করে সে বিপদ থেকে সিটিকে উদ্ধার করেন ইংলিশ ডিফেন্ডার কাইল ওয়াকার। এর একটু আগেই আবার সিটি তারকা গ্যাব্রিয়েল জেসুসের শট আটকে দেন পাত্রিসিও। ৬০ মিনিটে পদেন্সের আরেকটা শট লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ৬১ মিনিটে ত্রায়োরের পা থেকে বল নিয়ে সহজ শটে গোল করতে ব্যর্থ হন মেক্সিকান স্ট্রাইকার রাউল হিমেনেজ।

গতবার এ মাঠেই দুই গোল করে তিন গোল হজম করেছিল সিটি। উলভসের মুহুর্মুহু আক্রমণে গার্দিওলার মনে তখন সে স্মৃতি না এসে যায়-ই না!

স্টাফ রিপোর্টার/বে অব বেঙ্গল নিউজ


  • 4
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    4
    Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published.