মাদকের সঙ্গে সম্পৃক্ততায় এনসিবি দফতরে দীপিকা পাড়ুকোন

  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1
    Share

মাদক মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মুম্বাইয়ে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর (এনসিবি) দফতরে এসেছেন অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোন। 

চিত্রঃ এনসিবি দফতরে দীপিকা পাড়ুকোন। (সংগৃহীত)

শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার এর একটি প্রতিবেদন এ তথ্য জানানো হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে সুশান্তের মাদক মামলার জন্য অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোন এনসিবির সদর দফতরে এসেছেন।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, দীপিকাকে মুম্বাইয়ের কোলাবা অ্যাপালো বন্দরের এভলিন গেস্ট হাউসে এনসিবি-র বিশেষ তদন্তকারী দলের (এসআইটি) দফতরে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সকালেই সেখানে পৌঁছান তিনি। দীপিকা উৎকণ্ঠায় ভোগেন বলে জিজ্ঞাসাবাদের সময় স্বামী রণবীর সিং তার সঙ্গে থাকতে চেয়েছেন বলে গতকাল শোনা গিয়েছিল। তবে এমন কোন অনুরোধ তাদের কাছে এসে পৌঁছায়নি বলে জানিয়েছেন তদন্তকারীরা। দীপিকা একাই এসেছেন জিজ্ঞাসাবাদের জন্য, তার সাথে রণবীরকে দেখা যায়নি।

প্রসঙ্গত সুশান্ত সিং রাজপুতের হত্যার তদন্তে মাদক মামলায় দীপিকার নাম উঠে আসার কারণে অভিনেত্রীকে ডেকে পাঠিয়েছিল এনসিবি। দীপিকার ম্যানেজার কারিশ্মা প্রকাশও একইদিন আবারও এনসিবির দফতরে এসেছেন। দু’জনকে মুখোমুখি বসিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এছাড়া একেবারে সাদামাটা পোশাকেই এনসিবি-র দফতরে এসেছেন দীপিকা। তারকা সুলভ কোনও আচরণ দেখা যায়নি তার মধ্যে। কালো চশমায় চোখও ঢেকে রাখেননি। বরং করোনাকালে সতর্ক বিধি মেনে মুখ ঢাকা ছিল মাস্কে। তিনি যে গাড়িতে এসেছেন সেটিও ছিলো একদম সাদামাটা। গাড়ির ব্যবহারে মানুষের ব্যক্তিত্ব ফুটে ওঠে, তা জানেন দীপিকা। তাই দামী গাড়িতে চড়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গেলে হয়তো নানান আলোচনা হতো সেটা এড়ানোর জন্যই তিনি সাধারণ গাড়ি বেছে নেন বলে মনে করা হচ্ছে। 

উল্লেখ্য একইদিনে অর্থাৎ শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) উক্ত মামলায় এনসিবির দফতরে হাজিরা দেওয়ার কথা অন্য দুই অভিনেত্রী সারা আলি খান এবং শ্রদ্ধা কাপূরেরও।

পূর্বে শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) দীপিকার ম্যানেজার কারিশ্মা প্রকাশকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো। একইদিনে এনসিবি অফিসে গিয়ে কথা বলেছেন রকুলপ্রীত সিং। বিশেষ তদন্তকারী দলকে দেওয়া রকুলের কথা অ্যানালাইস করে আদালতে পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন এনসিবির ডিরেক্টর জেনারেল মুথা অশোক জৈন।

অন্যদিকে জানা যায়, সুশান্ত মামলার গতিপ্রকৃতি নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন অভিনেতার বাবার আইনজীবী বিকাশ সিং।

বিকাশ সিং জানান, সুশান্তের পরিবার মনে করছে তার মৃত্যুর মামলাকে অন্য পথে ঘোরানো হচ্ছে। অল ইন্ডিয়া ইন্সটিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্স -এর চিকিৎসকরা বলেছেন শ্বাসরোধের ফলে সুশান্তের মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু সিবিআই এ বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কোন বিবৃতি জারি করেনি। ধীর গতিতে মামলা আগাচ্ছে বলে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন তিনি।

এছাড়া এ ব্যাপারে শিব সেনা নেতা সঞ্জয় রাউত বলেন, নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর কাজ মাদক পাচার রোখা। তা না করে বলিউডের একের পর এক তারকাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে পাঠাচ্ছে।

ওয়াইএইচ / বে অব বেঙ্গল নিউজ।


  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1
    Share

Leave a Reply

Your email address will not be published.