ফেনীতে ‘ধর্ষণ ও বিচারহীনতার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ’ শীর্ষক লংমার্চে কর্মীদের ওপর হামলায় ২৫ জন আহত…

  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    3
    Shares

ফেনীতে ‘ধর্ষণ ও বিচারহীনতার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ’ শীর্ষক লংমার্চে কর্মীদের ওপর হামলায় আহত ২৫ জন

ফেনীতে ‘ধর্ষণ ও বিচারহীনতার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ’ শীর্ষক লংমার্চে কর্মীদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে ছাত্র ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক অনিক রায়সহ ২৫ জন আহত হয়েছেন। আজ শনিবার দুপুরে ফেনীর জজ কোর্ট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

হামলার শিকার আন্দোলনকারীরা জানান, বেলা পৌনে ১২টার দিকে তারা শহীদ মিনারের সামনে সমাবেশ করে মিছিল নিয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনের সড়ক দিয়ে পাগলা মিয়া সড়কে অপেক্ষমান বাসের দিকে যাচ্ছিলেন। এরপর জজ কোর্ট এলাকায়ও তারা সমাবেশ করেন। এসময় তারা দুর্বৃত্তদের হামলার শিকার হয়েছেন।এর আগে ট্রাংক রোডে পুলিশের সঙ্গে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

এসময় পুলিশ জোটের তিন কর্মীকে মারধর করলে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। কর্মীদের প্রতিরোধের মুখে পড়ে পুলিশ ওই স্থান থেকে সরে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ওই সময় পাশেই শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে ধর্ষণবিরোধী সমাবেশ চলছিল। বাইরে ট্রাংক রোডের দোয়েল চত্বরে আগে থেকে ফেনী-২ আসনের এমপি নিজাম উদ্দিন হাজারীর ছবি সম্বলিত বড় বাঁধানো ফেস্টুন বসানো ছিল। শনিবার সমাবেশ চলাকালে কে বা কারা ফেস্টুনের ওপর লাল রঙ দিয়ে ‘ধর্ষকদের পাহারাদার’ কথাটি লিখে দেয়।

শনিবার সমাবেশ চলাকালে কে বা কারা ফেস্টুনের ওপর লাল রঙ দিয়ে ‘ধর্ষকদের পাহারাদার’ কথাটি লিখে দেয়

এসময় জিরো পয়েন্টে দায়িত্বরত পুলিশ সেখানে গিয়ে উপস্থিত কয়েকজন কর্মীর সাথে বাক-বিতণ্ডায় লিপ্ত হন এবং তিনজনকে মারধর করে। বাইরে উত্তেজনা দেখা দিলে এবং হট্টগোল শুরু হলে শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ থেকে শ’খানেক কর্মী বাইরে এসে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করেন। পরে প্রতিবাদের মুখে পুলিশ সরে গিয়ে পশ্চিমে বনফুল এর সামনে গিয়ে অবস্থান নেয়। শেষে নেতারা এসে কর্মীদের শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে নিয়ে যান। এসময় পুলিশের হামলার শিকার কর্মীদের নাম জানা যায়নি।

ঢাকা থেকে শুরু হওয়া ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী লংমার্চের সমর্থনে আয়োজিত সমাবেশে ফেনীতে দুর্বৃত্তদের হামলায় আহতরা নোয়াখালীর বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

হামলার শিকার আন্দোলনকারীরা জানান, ঢাকা থেকে আসার পথে কুমিল্লা, ফেনীর শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ, ফেনীর কোম্পানির মোড় ও দাগনভূঞা উপজেলায় তারা দুর্বৃত্তদের হামলার শিকার হয়।

শনিবার, ১৭ ই অক্টোবর দুপুরের পর থেকে লংমার্চে আহত ২৫ জন আন্দোলনকারী নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সভাপতি আল কাদরি জয় জানান, লংমার্চের সমাবেশে আহত ২৫ জন সমর্থককে নোয়াখালীর বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। ধর্ষণ ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে পূর্ব ঘোষিত নয় দফা বাস্তবায়নের দাবিতে ঢাকা থেকে নোয়াখালীর উদ্দেশে এ লংমার্চের আয়োজন করা হয়।
  
বেগমগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাহজাহান শেখ জানান, ঢাকা থেকে আসা ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী লংমার্চে আহতরা নোয়াখালী সদর হাসপাতাল ও চৌমুহনী লাইফ কেয়ার হাসপাতাল চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এসি/বে অব বেঙ্গল নিউজ/স্টাফ রিপোর্টার।


  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    3
    Shares