রওন্ডা ফ্লেমিং সান্টা মনিকায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ

  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    2
    Shares

রওন্ডা ফ্লেমিং সান্টা মনিকায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ

এই নায়িকা (৯৭) গত ১৪ অক্টোবর যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার সান্টা মনিকায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

হলিউডে দুই দশকের (১৯৪০-১৯৫০) ‘কুইন অব টেকনিকালার’ উপাধি পেয়েছিলেন রওন্ডা ফ্লেমিং। তাকে দেখা যায় ‘আউট অব দ্য পাস্ট’ ও ‘স্পেলবাউন্ড’-এর মতো ক্ল্যাসিক সিনেমায়।

১৯৬০ সালে হলিউড ওয়াক অব ফেমে তার তারকা যুক্ত হয়।


নায়িকার সেক্রেটারি কার্লা সাপনের বরাত দিয়ে খবরটি জানিয়েছে ভ্যারাইটি ডটকম। তিনি ৪০টির বেশি সিনেমায় অভিনয় করেন। এর মধ্যে আলফ্রেড হিচককের ‘স্পেলবাউন্ড’, জ্যাক টুরনুর ‘আউট অব দ্য পাস্ট’ ও রবার্ট সিওডমাকের ‘দ্য স্পাইরাল স্টিয়ারকেস’ আজও স্মরণীয়।

জীবনের শেষদিকে দাতব্য কাজের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন অভিনেত্রী। ক্যানসার, গৃহহীন মানুষ ও নিগৃহীত শিশু নিয়ে কাজ করছে এমন অনেক সংস্থায় ছিল তার সমর্থন। তার অভিনীত অন্য ক্ল্যাসিক সিনেমার মধ্যে আছে মিউজিক্যাল ফ্যান্টাসি ‘আ কানেকটিকাট ইয়াঙ্কি ইন কিং আর্থারস কোট’, ওয়েস্টার্ন ‘গানফাইট অ্যাট দ্য ওকে করাল’ ও নয়ার ধাঁচের ‘সাইটলি স্কারলেট’।

রওন্ডার নায়কদের মধ্যে ছিলেন বিং ক্রসবি, জন পাইন, কৃক ডগলাস, গেন ফোর্ড, বুর্ট ল্যাঙ্কাস্টার, বব হোপ, রক হাডসন ও রোনাল্ড রিগ্যানের মতো বিখ্যাত অভিনেতারা।
এ ছাড়া অভিনয় করেছেন হোয়াইল দ্য সিটি সিপস, পনি এক্সপ্রেস, দ্য বিগ সার্কাস, দ্য নুড বম্ব ও উইন টন টন দ্য ডগ সেভড হলিউড ছবিতে। রওন্ডার পারিবারিক নাম মেরিলিন লুইস।


তিনি স্কুলে পড়াকালে বিখ্যাত ট্যালেন্ট এজেন্ট হেনরি উইলসনের চোখে পড়েন। হেনরি অভিনেত্রীর নাম বদলে দেন। এরপর বিখ্যাত নির্মাতা ডেভিড ও সেলৎসনিকের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হন। তবে প্রথম কোন বড় চরিত্র পান ‘স্পেলবাউন্ড’ সিনেমায়। সেখানে যৌন বিকারগ্রস্ত নারীর ভূমিকায় অভিনয় করেন।


সিনেমার পাশাপাশি ব্রডওয়ে’তে অভিনয় করেন রওন্ডা ফ্লেমিং। ‘দ্য ওম্যান’ নাটকে তার অভিষেক ঘটে। এর পর করেন ‘দ্য বয়ফ্রেন্ড’। এছাড়া ওয়ান-ওম্যান কনসার্টে পারফর্ম করেন। টেলিভিশনের একাধিক সিরিজে অতিথি চরিত্রেও অভিনয় করেছেন। ১৯৬০ সালে হলিউড ওয়াক অব ফেমে তার তারকা যুক্ত হয়।

ব্যক্তিগত জীবনে ছয়বার বিয়ে করেছেন রওন্ডা ফ্লেমিং। তিনি ছেলে, নাতি-নাতনি ও তাদের সন্তানদের রেখে গেছেন। তার বেশ কয়েকজন দত্তক সন্তানও রয়েছে।

সূত্র : দ্য গার্ডিয়ান/দ্য টেলিগ্রাফ।


  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    2
    Shares