মা-মেয়ে নির্যাতনের ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন; দ্রুত সুষ্ট বিচারের দাবি ব্যারিস্টার সুমনের… (ভিডিও সহ)

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

চকরিয়ার হারবাং গরু চুরির অভিযোগে বৃদ্ধা মা-মেয়ে বেঁধে পেটানো ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।
রোববার বিকেলে তিনি গণমাধ্যমকে এ কথা জানান। এসময় তিনি তদন্ত সাপেক্ষে এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে হুশিঁয়ারি দেন।

ইতিমধ্যে ঘটনার তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করেছে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন। গত শুক্রবারের (২১ আগস্ট) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার হারবাং ইউনিয়নের ওই ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হলে ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়।

প্রকাশ্যে রশিতে বেঁধে পেটাতে পেটাতে গ্রামে ঘোরানো এবং ইউনিয়ন পরিষদের কার্যালয়ে আবার চেয়ারাম্যানের মারধর করার বিষয়টি ন্যক্কারজনক এবং মানবাধিকার লঙ্ঘন বলে অনেকেই মনে করছেন। এদিকে, গরু চুরির অভিযোগে দায়ের করা মামলায় ওই দুই মা-মেয়েসহ পাঁচজনকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
চকরিয়ার হারবাং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারাম্যান মো মিরানুল ইসলামের গ্রেফতার হয়েছেন কিনা তা এখনো জানা যায় নি।

কিন্তু চকরিয়া থানা ওসি হাবিবুর রহমান জানান, তারা ভিডিও দেখে ৩জনকে শনাক্ত এবং গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা যথাক্রমে নজরুল, জসিম, নাছির। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে বলেও জানায় পুলিশ।

এইদিকে ব্যারিস্টার সুমন ,প্রকৃত পক্ষে এই ঘটনার সাথে যারা যারা জড়িত, তদন্ত কমিটি যেন সুষ্ঠু তদন্ত করে সে যেই হোক তাদের কে দ্রুত গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন।
এছাড়া এই ঘটনায় দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য কক্সবাজার জেলা প্রশাসক, স্থানীয় সরকার মন্ত্রানালয় এবং বাংলাদেশ সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি।
তিনি আরো বলেন,যাদের হাতে ক্ষমতা তারা যেন ক্ষমতার অপব্যবহার করতে না পারে সেজন্য সাধারণ মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে।
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যারা নির্যাতিত মা-মেয়ের পাশে দাঁড়িয়েছেন তাদের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছন ব্যারিস্টার সুমন।

সূত্রঃ ব্যারিস্টার সুমনের ফেসবুক পোস্ট।

বিশেষ প্রতিনিধি/ চট্টগ্রাম।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published.