বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের উপর হামলা

  • 17
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    17
    Shares

বরিশালঃ বরিশাল বিশ্ববিদ্যায়ে মধ্যরাতে শিক্ষার্থীদের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এক ছাত্রকে ‘লাঞ্ছিত’ করার অভিযোগে বিআরটিসির এক কর্মী গ্রেপ্তার হওয়ার পর মধ্যরাতে এই ঘটনা ঘটে।
বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের উপর হামলা
বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের উপর হামলা

বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে হামলায় আহত বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৩ শিক্ষার্থীকে ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার সকাল থেকে এর প্রতিবাদে বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে শিক্ষার্থীরা বরিশাল-পটুয়াখালী সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন।

বরিশাল মেট্রোপলিটন বন্দর থানার ওসি আনোয়ার হোসেন বলেন সআংবাদিকদের জানান, “পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার চেষ্টা চলছে। ঝুকি পূর্ণ জায়গায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। আমরা ইতিমধ্যে আন্দোলনরত বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আশ্বাস দিয়েছি, জড়িতদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিক্ষোভরত শিক্ষার্থীরা সাংবাদিকদের জানান, সজল নামের এক শিক্ষার্থী যাশোরের বাসের টিকেট কাটতে গেলে মঙ্গলবার দুপুরে উক্ত ঘটনার সূত্রপাত হয়। তার সাথে  সেখানে বিআরটিসির কাউন্টারের কর্মীদের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে তাকে সেখানে লাঞ্ছিত করা হয়।

এর প্রতিবাদে বিকালে রুপাতলী এলাকায় সড়ক অবরোধ করে শিক্ষার্থীরা।

কোতোয়ালি মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত)মো.  আসাদুজ্জামান জানান, পরে বিআরটিসির কাউন্টার কর্মী রফিককে পুলিশ আটক করলে শিক্ষার্থীরা শান্ত হন।

এরপর রুপাতলী হাউজিং এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের রাত ২টার দিকে মেসে হামলার ঘটনা ঘটে বলে আহত শিক্ষার্থীরা জানান।

আহত শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, বরিশাল-পটুয়াখালী মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাউসার হোসেন শিপনের নেতৃত্বে একদল পরিবহন শ্রমিক লাঠিসোঁটা নিয়ে ওই হামলা চালায়।

বিক্ষোভরত শিক্ষার্থীদের একজন জানান, পরে আহতদের শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ওই ঘটনার পর রাতেই শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে সড়ক অবরোধ করেন। সেখানে তারা আগুন জ্বালিয়ে রাস্তা অবরোধ করেন ও বিক্ষোভ করেন। ঠিক ভোরে তারা ফিরে গেলেও আবার সকালে ফিরে এসে তারা  অবরোধ শুরু করলে রাস্তায় যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

অভিযোগের বিষয়ে সাংবাদিকরা  জানতে চাইলে মিনিবাস মালিক সমিতির নেতা কাউসার বলেন, তিনি ঘটনা জানেন না, এবং তিনি এর দাথে জড়িত নন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক আরিফ হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, “বেলা ১১টায় উপাচার্য, বাস-মালিক সমিতি ও শিক্ষার্থীদের নিয়ে বৈঠক হবে। আমরা সমাধানের চেষ্টা করছি।”

Bay of bengal news / বে অব বেঙ্গল নিউজ

  • 17
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    17
    Shares