আলাউদ্দিন হত্যায় কাদের মির্জাকে আসামি করে মামলার আবেদন

নোয়াখালীর কোম্পানিগঞ্জে দুই পক্ষের সংঘর্ষে অটোরিক্সা চালক আলাউদ্দিন (৩২) নিহতের ঘটনায় বসুরহাট পৌরসভার মেয়র কাদের মির্জাকে আসামি করে হত্যা মামলার লিখিত আবেদন করা হয়েছে।

আলাউদ্দিন হত্যায় কাদের মির্জাকে আসামি করে মামলার আবেদন
আলাউদ্দিন হত্যায় কাদের মির্জাকে আসামি করে মামলার আবেদন

১১ মার্চ (বৃহস্পতিবার) রাতে নিহত আলাউদ্দিনের ভাই এমদাদ হোসেন এই আবেদন করেন। এতে ১৬৪ জনের নাম উল্লেখসহ আরো ৩০-৪০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়। মামলার অন্যান্য আসামির মধ্যে কাদের মির্জার ভাই শাহদাৎ হোসেন এবং সন্তান মির্জা মাসরুর কাদেরের নামও উল্লেখ করা হয়েছে।

মামলার এজহারে বলা হয়, পূর্ব পরিকল্পনার অংশ হিসেবে আসামীরা কাদের মির্জার নেতৃত্বে সশস্ত্র অবস্থায় সমাবেশে হামলা চালায়। এসময় মামলার চার নম্বর আসামি নাজিম উদ্দিন বাদল হত্যার উদ্দেশ্যে আলাউদ্দিন কে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। অতঃপর এজহারভুক্ত ৫ নম্বর আসামী সহ অন্যান্যরা এলোপাতাড়ি গুলি চালিয়ে আলাউদ্দিনকে গুরুতর আহত করে। পরবর্তীতে ৬ নম্বর আসামি মাইন উদ্দিন লোহার রড আলাউদ্দিনের পেটে ঢুকিয়ে দিয়ে চলে যায়। এতে গুরুতর আহত হয়ে আলাউদ্দিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে মৃত্যবরণ করেন।

প্রসঙ্গত ৮ মার্চ (সোমবার) বিকেল হতে মধ্যরাত পর্যন্ত কাদের মির্জা ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলের সমর্থকদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষে রণক্ষেত্রে পরিণত হয় কোম্পানিগঞ্জের পৌরসভা এলাকা। এতে গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে প্রাণ হারান আলাউদ্দিন। নিহত আলাউদ্দিন মিজানুর রহমান বাদলের অনুসারী

এদিকে উক্ত সংঘর্ষের ঘটনায় উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন হৃদয়ও গুরুতর আহত হয়েছেন। বর্তমানে তিনি ঢাকায় চিকিৎসাধীন আছেন। এছাড়াও সংঘর্ষে লিপ্ত হয়ে উভয়পক্ষের প্রায় অর্ধ শতাধিক লোকজন আহত হয়েছেন। তাদেরকে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

বে অব বেঙ্গল নিউজ / bay of bengal news