লিওনেল মেসিকে রাখতে মরিয়া বার্সেলোনা-

লিওনেল মেসিকে রাখতে মরিয়া বার্সেলোনা-
লিওনেল মেসিকে রাখতে মরিয়া বার্সেলোনা-
লিওনেল মেসিকে বার্সেলোনায় রাখতে যথাসাধ্য চেষ্টা করা হবে বলে জানিয়েছেন ক্লাবটির সভাপতি।আনুষ্ঠানিকভাবে সভাপতির দায়িত্ব নিয়ে তিনি আরও জানান, লোকসান পুষিয়ে নিতে আয়ের নতুন উৎসের খুঁজছে বার্সা।

লিওনেল মেসির প্রতি কাতালানদের ভালোবাসা খুব ভালোভাবে উপলব্ধি করেন দ্বিতীয় দফায় বার্সার দায়িত্ব নেয়া হোয়ান লাপোর্তা। গত ৭ মার্চ ক্লাব বার্সেলোনার সভাপতি নির্বাচনে দ্বিতীয় বারের মতো জয়লাভ করেছেন। দিন দশেক ছাড়া আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্বটা বুঝে নিলেন।

সাবেক সভাপতি হোসে মারিয়া বার্তোমিউয়ের সঙ্গে দ্বন্দ্বের জেরে প্রিয় ক্লাব ছেড়ে যেতে চেয়েছিলেন মেসি। সে সময় রিলিজ ক্লজের বিরাট অঙ্কের অর্থ দিয়েই তাকে দলে ভেড়ানোর চেষ্টা করেছিল ম্যানচেস্টার সিটি ও পিএসজির মতো খ্যাতনামা সব ক্লাব। চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ায় আর্জেন্টাইন তারকাকে নিয়ে আবারও ট্র্যান্সফার মার্কেটে উঠেছে নানা গুঞ্জন। নিজেদের সেরা খেলোয়াড়কে যেকোনো মূল্যে দলে রাখতে চায় বার্সা।

বার্সেলোনার সভাপতি হোয়ান লাপোর্তা জানান, আমি আবারও বলতে চাই, এখানে থাকতে আমি মেসিকে অনুরোধ করব। মেসির যে কোনো সিদ্ধান্ত মেনে নেব আমরা। কিন্তু ওকে রাখতে সাধ্যমতো চেষ্টা করে যাবো। কারণ ইতিহাসের সেরা ফুটবলার সে। তার প্রতি আমার ভালোবাসা কতটুকু, তা সে ভালোভাবে জানে। বার্সা তাকে ভালোবাসে। আমি নিশ্চিত, দর্শকপূর্ণ এই স্টেডিয়ামে খেললে আর বিদায়ের কথা ভাবতে পারবে না লিও।

কিন্তু দর্শকপূর্ণ স্টেডিয়ামে কবে হবে খেলা? এ ব্যাপারে অনিশ্চয়তা কাটছে না। করোনা জর্জরিত মৌসুমে এসব প্রশ্নের উত্তর এখনও অজানা। পাশাপাশি দর্শক না থাকায় টিকিট, সম্প্রচার স্বত্ব সব মিলিয়ে ব্যাপক লোকসানের মুখে স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সা।২০১৯-২০ মৌসুমে প্রায় ১০০ মিলিয়ন ইউরো লোকসান গুণতে হয়েছিল বার্সেলোনার।

বার্সেলোনার নতুন সভাপতি হোয়ান লাপোর্তা
বলেন, বার্সার আর্থিক অবস্থাই এখন সবার মাথাব্যথার কারণ। ক্লাবের আর্থিক সুদিন ফেরানোই আমাদের কাছে প্রাধান্য পাচ্ছে। কঠিন কিছু সিদ্ধান্ত নিতে হবে। আয়ের নতুন উৎস তৈরির চেষ্টা করছি আমরা।

স্প্যানিশ গণমাধ্যমে গুঞ্জন উঠেছে-ব্রাথওয়েট ও জুনিয়র ফিরপোসহ স্কোয়াডের ৭ ফুটবলারকে নাকি গ্রীষ্মকালীন দলবদলে ছেড়ে দিতে চাইছে বার্সা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.