প্রথম পেসার হিসেবে ইতিহাস গড়লেন অ্যান্ডারসন

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ছবি:অভিষেক অ্যান্ডারসন

টেস্ট অভিষেকের ১৭ বছর পরও নতুন বলে ইংল্যান্ডের মূল ভরসার নাম। আজ তো টেস্ট ইতিহাসের প্রথম পেসার হিসেবে ৬০০ উইকেটের মাইলফলকও ছুঁয়ে ফেললেন জেমস মাইকেল অ্যান্ডারসন।

ভুলটা আমারই। যাও, আবার শুরু করো’—২০ বছর বয়সী এক পেসারের দিকে লাল বলটা ছুড়ে দিতে দিতে বললেন নাসের হুসেইন।

সেই যে শুরু, জেমস অ্যান্ডারসন আর থামলেনই না।

*****এন্ডারসনের হাতে ৬০০ উইকেটের ঝুড়ি……………
অথচ শুরুতেই শেষ হয়ে যেতে পারত সব। ভাগ্যিস অ্যান্ডারসন প্রথম অধিনায়ক হিসেবে নাসের হুসেইনকে পেয়েছিলেন। নইলে টেস্ট অভিষেকের প্রথম ওভারের পর অ্যান্ডারসনের হাতে আর বল না উঠলে অবাক হওয়ার কিছু ছিল না।

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে অভিষেকের এক বছর না হতেই ২০০৩ সালে টেস্ট অভিষেকও হয়ে গেল অ্যান্ডারসনের। ইংল্যান্ডের ৬১৩ নম্বর খেলোয়াড় হিসেবে ক্রিকেটতীর্থ লর্ডসে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট ক্যাপ পেলেন বার্নলির ছেলে অ্যান্ডারসন।

বল হাতে নিতে অবশ্য দ্বিতীয় দিন বিকেল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হলো তাঁকে। জিম্বাবুয়ের প্রথম ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই অপেক্ষার অবসান। ইংল্যান্ড অধিনায়ক বল তুলে দিলেন অভিষিক্ত বোলারের হাতে। অ্যান্ডারসন অবশ্য মনে করতে চাইবেন না ওই ওভারের কথা।


টেস্ট ক্রিকেটে অ্যান্ডারসনের প্রথম বলটায় নো ডাকলেন আম্পায়ার। বৈধ প্রথম বলটায় পয়েন্ট দিয়ে চার মেরে দিলেন ডিওন ইব্রাহিম। পরের দু বলে পুনরাবৃত্তি হলো প্রথম দুই বলের—প্রথমে নো, এরপর ইব্রাহিমের চার। অ্যান্ডারসন একটু নিশ্বাস নিলেন বৈধ তৃতীয় বলে। ইব্রাহিম ছেড়ে দেন বলটিকে। চতুর্থ বলে আবারও ইব্রাহিমের বাউন্ডারি। এক বল বিরতির পর ওভারের শেষ বলটাকে ফাইন লেগে পাঠিয়ে ৩ রান নিলেন ইব্রাহিম। টেস্ট অভিষেকের প্রথম ওভারে ১৭ রান! মুখ লুকানোর জায়গাই হয়তো খুঁজছিলেন অ্যান্ডারসন।

*****এন্ডারসনের হাতে ৬০০ উইকেটের ঝুড়ি……………
অধিনায়কের সমর্থন পাওয়া সেই বোলার এরপর একে একে পেরিয়ে গেলেন ১০০, ২০০, ৩০০, ৪০০, ৫০০ ও ৬০০ উইকেটের মাইলফলক।

ছবি:অ্যান্ডারসনের প্রথম উইকেট

সাউদাম্পটনে আজ ৬০০তম উইকেটটি পাওয়ার আগে অবশ্য ভাগ্য একটু লুকোচুরিও খেলল অ্যান্ডারসনের সঙ্গে।

সাউদাম্পটনে তৃতীয় টেস্টে পাকিস্তানের প্রথম ইনিংসের শেষের দিকে কী কাণ্ডই না হলো। ওই ইনিংসে ৬০০ ছোঁয়ার সুযোগ অবশ্য শেষ হয়ে গিয়েছিল পাকিস্তান অষ্টম উইকেট হারাতেই। ৬০০ থেকে তখন ৩ উইকেটের দূরত্বে অ্যান্ডারসন। তাঁকে ৫৯৭-এ দাঁড় করিয়ে রেখেই ক্যাচ ছাড়ার উৎসবে মাতলেন ইংলিশ ফিল্ডাররা। অ্যান্ডারসনের বোলিংয়ে ১০ বলের মধ্যে তিন তিনটি ক্যাচ পড়ল।

ইএসপিএনক্রিকইনফোর লাইভ কমেন্ট্রিতে তো এক ভক্ত লিখেই বসলেন এটা অ্যান্ডারসনের বিরুদ্ধে ‘ষড়যন্ত্র’। ষড়যন্ত্রের হেতু কী সেই ব্যাখ্যাও দিলেন ওই ক্রিকেট ভক্ত। লিখলেন ৬০০ উইকেট পেয়েই যদি অবসরের ঘোষণা দিয়ে দেন অ্যান্ডারসন, সেই ভয় থেকেই ক্যাচ ছাড়ছেন বার্নস-ক্রলি-ব্রডরা। পরে নাসিম শাহর উইকেটটি নিয়ে ৫৯৮-এ উঠেছেন।

*****এন্ডারসনের হাতে ৬০০ উইকেটের ঝুড়ি……………

বৃষ্টিবাধা শেষে যখন খেলা শুরু হলো সতীর্থদের সাহায্য আর চাননি অ্যান্ডারসন। কাল শেষ বিকেলে পাকিস্তানি ওপেনার আবিদ আলীকে এলবিডব্লু করে পেয়ে যান ৫৯৯তম উইকেট। এরপর আবার সেই আলোর যড়যন্ত্র। চতুর্থ দিনের খেলা শেষ হলো অ্যান্ডারসনকে ৫৯৯-এ দাঁড় করিয়েই।

ছবি:অ্যান্ডারসন


অ্যান্ডারসনকে বাধা দিতে আজ আবার হাজির বৃষ্টি। খেলা শুরু হতে হতে বেজে গেল স্থানীয় সময় সোয়া চারটা। কিন্তু অ্যান্ডারসন বেশি সময় নেননি। আজহার আলীকে স্লিপে ক্যাচ বানালেন, সেটি নিতে এবার ভুল করলেন না ইংল্যান্ড অধিনায়ক জো রুট। ৬০০! সেই অ্যান্ডারসনের ৬০০!

*****এন্ডারসনের হাতে ৬০০ উইকেটের ঝুড়ি……………

রোকন উদ্দিন/ স্পোর্টস ডেস্ক/ বিবিএন

*****এন্ডারসনের হাতে ৬০০ উইকেটের ঝুড়ি……………

*****এন্ডারসনের হাতে ৬০০ উইকেটের ঝুড়ি……………


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published.