বেনাপোল বন্দরে রাজস্ব ফাঁকির দায়ে ট্রাকসহ ২০লাখ টাকার শাড়ির চালান আটক…

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

চিত্রঃ সংগৃহীত।

মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) দুপুরে বেনাপোল বন্দরের ১৩ নম্বর শেড থেকে ২০ লাখ টাকার রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে ভারতীয় শাড়ির একটি পণ্যের চালান পাচারের সময় আটক করেছে কাস্টমস কর্মকর্তারা।

বেনাপোল কাস্টমস হাউসের কমিশনার আজিজুর রহমান জানান, গোঁপন খবর পেয়ে রাজস্ব ফাঁকির অভিযোগে সিএন্ডএফ এজেন্ট রিমু এন্টারপ্রাইজের একটি শাড়ির চালান জব্দ করা হয়েছে। যার কোনো কাগজপত্র ছিল না। তার লাইসেন্স বাতিলের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে বলেও জানান তিনি।

বেনাপোল কাস্টমস সূত্র জানায়, যশোরের ভাবনা এন্টারপ্রাইজ নামে একজন আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান ভারত থেকে ৬০২ প্যাকেজ রকমারি পণ্য আমদানি করেন। যার কাস্টমস বি/ই নাম্বার-৩২৯৩৭ তারিখ- ১৩/০৮/২০। পণ্য চালানটি ছাড় করার দায়িত্বে ছিলেন পুটখালি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাস্টার হাদিউজ্জামানের মালিকানাধীন সিএন্ডএফ এজেন্ট রিমু এন্টারপ্রাইজ। পণ্য চালানটি কাস্টমস ও বন্দরের সকল আনুষ্ঠানিকতা শেষে বন্দর থেকে ছাড় নেয়ার সময় কৌশলে একই শেডে লুকিয়ে রাখা অতিরিক্ত ১০ বেল উন্নতমানের বিয়ের শাড়ি ট্রাকে তুলে নিয়ে যায়। এ সময় গোপন খবর পেয়ে কাস্টমস সদস্যরা পণ্য চালানটি আটক করে । জব্দ ট্রাকের নম্বর ঢাকা মেট্রো ট-১৩-০৪৫৪। জব্দ অতিরিক্ত ১০ বেল শাড়ির কোনো কাগজপত্র ট্রাকের সাথে ছিল না। 

বিষয়টি নিয়ে অভিযুক্ত সিঅ্যান্ডএফ ব্যবসায়ী চেয়ারম্যান হাদিউজ্জামনকে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি রিসিভ করেনিন।

এদিকে অভিযোগ রয়েছে, দীর্ঘদিন ধরে প্রভাব খাটিয়ে বন্দর থেকে কাগজপত্র বাদেই নো এন্ট্রি মালামাল পাচার করে আসছিল রিমু এন্টারপ্রাইজ। সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে কোটি কোটি টাকার অবৈধ অর্থের মালিক হয়েছেন মাস্টার হাদিউজ্জামান। ইতিপূর্বে বিভিন্ন সময়ে তার মালিকানাধীন সিএন্ডএফ এজেন্ট রিমু এন্টারপ্রাইজের বৈধ পণ্যের সাথে অবৈধ পণ্য জব্দ হওয়ার একাধিক রেকর্ড কাস্টমসে আছে। ২০ লাখ টাকার রাজস্ব ফাঁকির অভিযোগে সিএন্ডএফ এজেন্ট লাইসেন্স বাতিল করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে রিমু এন্টারপ্রাইজের ভারত থেকে আমদানি করা একটি মাছের চালানে ১১ লাখ টাকার রাজস্ব ফাঁকি দেওয়ায় ধরা পড়ে।

এদিকে স্থানীয়রা জানান, বেনাপোল বন্দর থেকে প্রভাবশালী ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন পরিচয়ে কখনো কাস্টমস, বন্দর কর্মকর্তাদের ঘুষ দিয়ে ম্যানেজ আবার কখনো ভয়ভীতি দেখিয়ে সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে পণ্য চালান নিয়ে যাচ্ছে।

এমএইচ/ বিবিএন/ স্টাফ রিপোর্টার।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published.